কুমিল্লা জেলা

তথ্য

Description

হাতে বোনা কাপড়ের জন্য প্রাচীনকাল থেকে কুমিল্লার বিশ্বব্যাপী খ্যাতি রয়েছে। এই শিল্পের সাথে সম্পৃক্ত সমাজটিকে আঞ্চলিক ভাষায় বলা হত ‘বুগি’ অথবা ‘দেবনাথ’। ধীরে ধীরে এই জেলায় পাট শিল্পের প্রসার ঘটে। ইংরেজ শাসনামলে গান্ধীর অসহযোগ আন্দোলনের সময় এখানকার বস্ত্র শিল্পের প্রসার ঘটেছিল। গান্ধী বিদেশী কাপড় বর্জনের জন্য ঐতিহাসিক আহবান জানালে স্থানীয় হাতে বোনা কাপড়ের চাহিদা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। সেসময় বস্ত্র উৎপাদন বৃদ্ধি করতে সেলাই মেশিন দ্রুত পরিচালনার স্বার্থে মাটিতে গর্ত করা হয়েছিল এবং গর্ত থেকে উৎপাদিত কাপড়কে বলা হত ‘খাদি’ যা পরবর্তীতে কুমিল্লার ‘খাদি’ অথবা ‘খদ্দর’ হিসেবে জনপ্রিয়তা লাভ করে। তবে, ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা পরবর্তী স্বল্প সময় পর্যন্ত বর্ধমানশীল এই শিল্পটি টিকে ছিল। মধ্যসত্ত্বভোগীরা খাদি কাপড় তৈরির কাঁচামালের দাম বেশি রাখায় এবং পাওয়ার লুম স্থাপনের জন্য যন্ত্রপাতি আমদানির প্রয়োজন হওয়ায় আশির দশকে বুগিরা তাঁদের দীর্ঘদিনের বুনন শিল্প ত্যাগ করতে বাধ্য হয়। পরবর্তীতে পাওয়ার লুমের মাধ্যমে বস্ত্র উৎপাদন বহুগুনে বৃদ্ধি পায়।

Where to stay

আপনার সুবিধার্থে কুমিল্লায় থাকার জন্য কিছু হোটেল ও গেস্টহাউজ সম্পর্কে নিম্নে তথ্য প্রদান করা হলঃ ১। আশিক রেসিডেনসিয়াল রেস্ট হাউজ ঠিকানাঃ ১৮৬, নজরুল এভিনিউ কুমিল্লা যোগাযোগঃ ৬৮৭৮১ ২। হোটেল আবেদিন ঠিকানাঃ স্টেশন রোড কুমিল্লা যোগাযোগঃ ৭৬০১৪ ৩।হোটেল নুরজাহান ঠিকানাঃ ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক, কুমিল্লা যোগাযোগঃ ৬৮৭৩৭ ৪। হোটেল সোনালি ঠিকানাঃ কান্দিরপাড় চত্বর, কুমিল্লা যোগাযোগঃ ৬৩১৮৮

How to go

কুমিল্লার সাথে সারাদেশের রয়েছে চমৎকার পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থা। ঢাকা থেকে সড়ক ও রেলপথে কুমিল্লায় যাওয়া যায়। কুমিল্লায় একটি বিমানবন্দর থাকলেও বর্তমানে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে না।

ঢাকা থেকে কুমিল্লার দূরত্ব ৯৭ কিলোমিটার। আপনি বাসে করে সড়কপথে কুমিল্লায় পৌছাতে পারবেন। আপনার সুবিধার্থে কুমিল্লায় চলাচলকারী বাসগুলো সম্পর্কে নিম্নে তথ্য প্রদান করা হলঃ
১। উপকুল রয়্যাল
কমলাপুর বাসস্ট্যান্ড
যোগাযোগঃ ০১৯৮১-০০২৯৩২, ০১৯৮১-০০২৯৪২
২। তিশা
সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড
যোগাযোগঃ ০১৭৩১-২১৭৩২২
৩। বিআরটিসি
কমলাপুর বাসস্ট্যান্ড
যোগাযোগঃ ০১৭৭০-৪৯৩৭৭৫
৪। প্রাইম সার্ভিস
হ্যাচেল রোড
যোগাযোগঃ ০২-৯৫৫৪৪৯৬
সকাল ৬:১৫ মিনিট থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রতি ১৫ মিনিটে কুমিল্লার উদ্দেশ্যে বাস ছেড়ে যায়।
বাস ভাড়াঃ প্রায় ২২০/-টাকা

ঢাকা থেকে চট্রগ্রামগামী ট্রেনে করে কুমিল্লায় পৌছাতে পারবেন। ঢাকা থেকে প্রতিদিন একাধিক ট্রেন কুমিল্লা হয়ে চট্রগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। কুমিল্লায় যাওয়ার জন্য ট্রেনের মধ্যে রয়েছেঃ
মহানগর প্রভাতি
ছাড়ার সময়: সকাল ৭:৪০ মিনিট
পৌঁছানোর সময়ঃ দুপুর ২৩০ মিনিট
ট্রেনে করে প্রায় আড়াই ঘণ্টায় কুমিল্লায় পৌঁছে যাবেন।

ভ্রমন প্যাকেজ

কথা বলুন

এই মুহূর্তে অনলাইনে না থাকায় আমরা দুঃখিত! কিন্তু আপনি আমাদের ই-মেইল পাঠাতে পারেন। আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেব।

আপনার প্রশ্ন বা সমস্যার সহযোগিতা করায় আমরা সর্বদা তৎপর!

ENTER ক্লিক করুন