মানিকগঞ্জ জেলা

তথ্য

Description

বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত একটি জেলার নাম মানিকগঞ্জ। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসনকালে ১৮৪৫ সালের মে মাসে ফরিদপুর জেলার (১৮১১ সালে গঠিত) অধীনে মানিকগঞ্জ মহাকুমা গঠন করা হয়। প্রশাসনিক জটিলতা এড়াতে ১৮৫৬ সালে মানিকগঞ্জকে ঢাকার অধীনে নিয়ে আসা হয়। ১৯৮৪ সালের ১লা মার্চ ঢাকা বিভাগের অধীনে মানিকগঞ্জ জেলা গঠন করা হয়। ১৩৮৩.৬৬ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই জেলার ভৌগলিক অবস্থান হল পূর্ব অক্ষাংশে ২৩˚৫২’ থেকে ৪৫˚০’ পর্যন্ত এবং পূর্ব দ্রাঘিমাংশে ৯০˚৪’ থেকে ১৫˚০’ পর্যন্ত। প্রায় কয়েক শত বছর পূর্বে পদ্মা নদী, গঙ্গা নদী, ব্রহ্মপুত্র নদী, ধলেশ্বরি নদী, ইছামতি নদী, তিস্তা নদীসহ বিভিন্ন নদীর বয়ে নিয়ে আসা পলিমাটি দিয়ে এই জেলার সৃষ্টি হয়েছিল।

Where to stay

মানিকগঞ্জে থাকার জন্য হোটেল ও গেস্টহাউজগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ ১। মানিকগঞ্জ রেসিডেনসিয়াল বোর্ডিং (বেসরকারি) ২০৮, শহীদ রফিক সড়ক, মানিকগঞ্জ, বাংলাদেশ; এখানে ১৬টি সিঙ্গেল এবং ১০টি ডবল কক্ষ রয়েছে। ফোনঃ ০৬৫১-৬১৩৫৯ ২। নবীন রেসিডেনসিয়াল বোর্ডিং (বেসরকারি) মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড (নবীন সিনেমা হলের পাশে), মানিকগঞ্জ, বাংলাদেশ; এখানে ১৫টি সিঙ্গেল এবং ৭টি ডবল কক্ষ রয়েছে। ফোনঃ ০১৭১২৬১১৪৫২ ৩। জেলা পরিষদ বোর্ড হাউজ (সরকারি) শহীদ মিরাজ তপন স্টেডিয়ামের পাশে, মানিকগঞ্জ, বাংলাদেশ; ফোনঃ ০৬৫১-৬১৪৬৩

How to go

মানিকগঞ্জ জেলার উত্তরে টাঙ্গাইল জেলা, পূর্বে ঢাকা জেলা, দক্ষিনে ফরিদপুর এবং ঢাকা জেলা এবং পশ্চিমে পদ্মা নদী, যমুনা নদী এবং পাবনা জেলা ও রাজবাড়ি জেলা অবস্থিত।

ঢাকার গাবতলি এবং গুলিস্তান থেকে বেশকিছু বাস যেমনঃ বিআরটিসি বাস সার্ভিস, শুভযাত্রা বাস সার্ভিস, পদ্মালাইন ইত্যাদি মানিকগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এসব বাসে মানিকগঞ্জে যেতে ভাড়া লাগবে প্রায় ৪০/- টাকা।

মানিকগঞ্জে পৌছানোর জন্য নিম্নের লঞ্চগুলো ব্যবহার করতে পারেনঃ
আরিচা লঞ্চঘাট থেকে মানিকগঞ্জ হয়ে পাবনা অথবা কাজীরহাটে চলাচল করে। ভাড়াঃ ৩৫/- টাকা।
পাটুরিয়া থেকে রাজবাড়ি, ভাড়াঃ ৩০/- টাকা।

ভ্রমন প্যাকেজ

কথা বলুন

এই মুহূর্তে অনলাইনে না থাকায় আমরা দুঃখিত! কিন্তু আপনি আমাদের ই-মেইল পাঠাতে পারেন। আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেব।

আপনার প্রশ্ন বা সমস্যার সহযোগিতা করায় আমরা সর্বদা তৎপর!

ENTER ক্লিক করুন