মাধনগর রথ বাড়ী

ধরন: ইতিহাস ও সংস্কৃতি
সহযোগিতায়: Nayeem
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিস্তারিত

মাধনগর রথ বাড়ী উপমহাদেশের বৃহৎ ও প্রাচীনতম। ১৮৬৭ সালে পাবনার দিলালপুরের জমিদার যামিনী সুন্দরী বসাক এই রথটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। রথের মালিকানায় ছিলেন নাটোরের জমিদার শৈলবালা ও কালিদাসী। প্রতি বছর আষাঢ় মাসের তিথি অনুসারে এখানে  মাস ব্যাপী রথের মেলা ও পুঁজা অর্চনা হত। বীরকুৎসা ও গোয়ালকান্দির জমিদারের হাতি এসে রথ যাত্রায় অংশ নিত এবং রথ টানার কাজ করতো। এখানকার যাবতীয় খরচ পাবনার দিলালপুরের জমিদার যামিনী সুন্দরী স্টেট থেকে আসতো।

১৮৬৭ সাল থেকে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত যামিনী সুন্দরী বসাক এই ব্যায় ভার বহন করেছেন। দেশ বিভাগের পর আর কোন অনুষ্ঠান হয়নি। ২০১২ সাল থেকে স্থানীয় হিন্দু-মুসলিম মিলে আবারও রথের মেলা ও হিন্দু সম্প্রদায়ের পূঁজা অর্চনা শুরু হয়। রথের নামে বর্তমানে ১৫ বিঘা জমি আছে। রথটি রক্ষণাবেক্ষন, পূঁজা অর্চনা করছেন পিন্টু অধিকারী।


কিভাবে যাবেন

মাধনগর রথবাড়ী মাধনগর ইউনিয়নের পশ্চিম মাধনগর গ্রামে অবস্থিত। নলডাঙ্গা উপজেলা হইতে ভ্যান, অটো রিক্সা, মটর সাইকেল, নছিম এ চরে প্রায় ৩.৫ কিলোমিটার দূরে মাধনগর রথ বাড়ী যাওয়া যায়। অথবা, নাটোর উপজেলা হতে সিএনজি নিয়েও যাওয়া যায়।

কিভাবে পৌঁছাবেন: নলডাঙ্গা উপজেলা

ঢাকা থেকেঃ রাজশাহীর/নাটোর/চাপাইনবাবগঞ্জ এর বাসে নাটোর মাদ্রাসা মোড়/বাসস্ট্যান্ড নামতে হবে। সেখান হতে পশ্চিমে দিকে রেল ষ্টেশন রাস্তায় উপজেলা পরিষদে সিএনজি/নছিমন যোগে আসতে হবে নলডাঙ্গা উপজেলায়। নাটোর মাদ্রাসা মোড় হতে উপজেলা প্রশাসন এর দূরত্ব ১৮ কি. মি. ।

রাজশাহী থেকেঃ ঢাকা/সিরাজগঞ্জ/পাবনা/কুষ্টিয়া জেলার যেকোন বাসে এসে বড় হরিশপৃর বাইপাসে নামতে হবে। সেখান হতে পশ্চিমে দিকে রেল ষ্টেশন রাস্তায় উপজেলা পরিষদে সিএনজি/নছিমন যোগে আসতে হবে নলডাঙ্গা উপজেলায়।

বগুড়া থেকেঃ রাজশাহীর/চাপাইনবাবগঞ্জ/পাবনা/কুষ্টিয়া জেলার যেকোন বাসে এসে নাটোর বগুড়া বাসষ্ট্যান্ডে নামতে হবে। সেখান হতে পশ্চিমে দিকে রেল ষ্টেশন রাস্তায় উপজেলা পরিষদে সিএনজি/নছিমন যোগে আসতে হবে নলডাঙ্গা উপজেলায়।

কোথায় থাকবেন

নলডাঙ্গা নতুন উপজেলা হওয়ার কারনে এখনো কোন হোটেল আবাসন গড়ে উঠেনি। নতুন ভাবে কোন হোটেল আবাসন গড়ে উঠলে তখন ওয়েব পোর্টালে তুলে ধরা হবে।

খাবার সুবিধা

নাটোরে কোথায় খাবেন জানতে এখানে ক্লিক করুন

মানচিত্র

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কথা বলুন

এই মুহূর্তে অনলাইনে না থাকায় আমরা দুঃখিত! কিন্তু আপনি আমাদের ই-মেইল পাঠাতে পারেন। আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেব।

আপনার প্রশ্ন বা সমস্যার সহযোগিতা করায় আমরা সর্বদা তৎপর!

ENTER ক্লিক করুন