তাহখানা কমপ্লেক্স

ধরন: প্রাসাদ
সহযোগিতায়: Nayeem ,Junnunur Rahman
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিস্তারিত

ছোট সোনা মসজিদ থেকে ৫০০ মি. উত্তর-পশ্চিমে জাহেদুল বালা নামের দীঘির পশ্চিম পাড়ে তাহখানা কমপ্লেক্স-এর অবস্থান। দ্বিতল বিশিষ্ট এ ইমারতটির পরিমাপ ৩৫.৩৫মি. x ১১.৫৮মি.। উত্তর-পুর্ব ও দক্ষিণ-পুর্ব কোণায় দু’টি অষ্টকোণাকৃতির কক্ষসহ উপরতলায় মোট ১৭টি কক্ষ আছে। উত্তর পাশের কক্ষটি নামাজ কক্ষ এবং অন্যান্য কক্ষ গুলো দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজেঃ যেমন- ক্ষৌরকর্ম, বিশ্রাম, আপ্যায়ন, ভোজনালয়, গোসল ইত্যাদি কাজে ব্যবহৃত হতো। দক্ষিণ পাশে গম্বুজ আকৃতির হাম্মামখানা অবস্থিত। দক্ষিণ-পুর্ব কোণায় অবস্থিত ১টি সিঁড়ি পুকুর পর্যন্ত ধাবমান রয়েছে। হাম্মামখানা ও প্রসাধনাগারে মাটির পাইপের সাহায্যে গরম এবং ঠান্ডা পানি সরবরাহের ব্যবস্থা ছিল। চুন-সুরকির সাহায্যে ছোট আকৃতির ইট দ্বারা নির্মিত এ ইমারতের ভিতরের দেয়ালপাত্রে কুলঙ্গিসহ অন্যান্য নকশা রয়েছে।

ইমারতটির ব্যবহার সম্পর্কে দু’টি মত প্রচলিত আছে। প্রথমত, শাহ সুজা অবকাশ যাপন, এলাকা পরিদর্শন এবং তাঁর আধ্যাত্মিক গুরু শাহ নিয়ামত উল্লাহ (রঃ) এর সাথে সাক্ষাতের জন্য এসে এখানে অবস্থান ও রাত্রিযাপন করতেন। দ্বিতীয়ত, আধ্যাত্মিক গুরু শাহ নিয়ামাত উল্লাহ (রঃ) এর বসবাসের নিমিত্তে শাহ সুজা খ্রিঃ ১৬৫৫ সালে এটি নির্মাণ করেন। এ ইমারতের উত্তর-পশ্চিমে মোগল আমলের একটি মসজিদ এবং উত্তরে শাহ নিয়ামাত উল্লাহ (রঃ) এর মাজার অবস্থিত। বর্তমানে এ ইমারতগুলো প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর কর্তৃক সংরক্ষিত পুরাকীর্তি।

তাহখানা শব্দটির অভিধানিক অর্থ হল রাজবাড়ি। এটি বিশাল এক পুকুরের পশ্চিমতীরে অবস্থিত একটি সুবিশাল স্থাপনা যা তাহখানা নামে পরিচিত। কমপ্লেক্সটির উত্তর-পশ্চিম প্রান্তে আরও স্থাপনা রয়েছে। যেহেতু সবগুলো স্থাপনাই একই সময়ে নির্মিত তাই এসবকে একটি কমপ্লেক্স হিসেবেই গণ্য করা হয়। যদিও কে মসজিদটি নির্মাণ করেছেন এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায়নি কিন্তু মসজিদটির স্থাপত্যশৈলী দেখে অনুমান করা যায় যে এটি মুঘল সুবেদার শাহসুজার সময়ে নির্মাণ করা হয়েছিল।


কিভাবে যাবেন

তাহখানা কমপ্লেক্স চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত। ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ কিভাবে যাবেন তা ইতিমধ্যেই উল্ল্যেখ করা হয়েছে। শিবগঞ্জ উপজেলায় যাওয়ার দিক নির্দেশনা পেতে ক্লিক করুন http://bit.ly/1h01qn7

কিভাবে পৌঁছাবেন: চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলা

ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের দূরত্ব ৩১৯.৪ কিলোমিটার (ভায়া রাজশাহী)। আপনি সড়কপথ এবং রেলপথে সেখানে পৌছাতে পারেন।

ঢাকা থেকে বিভিন্ন বাস যেমনঃ হানিফ এন্টারপ্রাইজ, মডার্ন এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন রাজশাহী হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে যায়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বিভিন্ন জেলা ও শহরে বাস ছেড়ে যায়। মূলত এখান থেকে রাজশাহীর উদ্দেশ্যই মূলত তিন ধরনের বাস ছেড়ে যায়, যেসব হলঃ গেইট লক, সরাসরি ও লোকাল সার্ভিস। এখান থেকে অন্যান্য রুটে চলাচলকারী বাস সার্ভিসগুলোর মধ্যে আছেঃ নবাবগঞ্জ-শিবগঞ্জ, নবাবগঞ্জ-নওগাঁ, নবাবগঞ্জ-নাচোল, নবাবগঞ্জ-রহানপুর। সোনা মসজিদ থেকে রাজশাহী প্রতিদিন সকাল ৭.১৫ মিনিট থেকে বিকাল ৫.১৫ মিনিট পর্যন্ত প্রতিদিন এক ঘণ্টা পর পর চলাচল করে। এছাড়া বিআরটিসি বাস নবাবগঞ্জ থেকে ঢাকায় চলাচল করে। এখানে দুইটি বাস টার্মিনালের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ বাস টার্মিনাল এবং অপরটি ঢাকা বাস টার্মিনাল।

অতীতে নদী পথই ছিল পরিবহনের প্রধান মধ্যম। এখান থেকে বিভিন্ন জেলায় পরিবহনের জন্য পদ্মা নদী, মহানন্দা নদী, পাগলা নদী, মরাগঙ্গা নদী ও কিছু বিল ব্যাবহার করা হত। ফারাক্কা বাঁধের কারনে পদ্মা নদীর পানি কমে যাওয়াতে নদীপথের জনপ্রিয়তা কমে যায়। তবে এখনও এই জেলার বিভিন্ন অংশ থেকে নদী পথে মাল পরিবহন করা হয় যেমন এই জেলার পশ্চিম এবং পূর্ব অংশ থেকে নদী পথই মাল পরিবহনের একমাত্র ভরসা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রোহানপুর এবং রাজশাহীর সাথে রেল যোগাযোগ ব্যাবস্থা খুবই সীমিত। এই জেলার ভেতর দিয়ে একটি আন্তর্জাতিক রেল লাইন ভারতের পশিমবঙ্গের মালদায় চলে গেছে। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন স্টেশন যেমনঃ নবাবগঞ্জ সদর, আমনুরা, নাচোল, নিজামপুর, রোহানপুর থেকে লোকাল ট্রেন রাজশাহী ও দেশের অন্যান্য অংশে যাতায়াত করে। তাছাড়া নবাবগঞ্জ থেকে রাজশাহী পর্যন্ত একটি শাটল সার্ভিস চলাচল করে। আপনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রাজশাহী পৌঁছে দেশের যেকোনো প্রান্তে আন্ত নগর ট্রেনে যাতায়াত করতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে থাকার জন্য শহরে অনেক হোটেল আছে। যেমনঃ
১। হোটেল রোজ
আনোয়ার হোসেন আনু,
স্টেশন রোড, (মহনন্দা বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন) ,লাখেরাজপাড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর।
ফোনঃ ০১৭৬১৮৫৫৪৭১

২। লাল বোডিং
মো: সেনটু মিঞা, ঢাকা বাসস্ট্যান্ড, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফোনঃ ০১৭১৮২৭৯৮৪১

৩। হোটেল আল নাহিদ
আলহাজ রফিকুল ইসলাম
শান্তিমোড়, আরামবাগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফোনঃ ০১৭১৩৩৭৬৯০২

৪। হোটেল স্বপ্নপুরী
মো: বাবুল হাসনাত দুরুল,
আরামবাগ মোড়, বিশ্ব রোড, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফোনঃ ০১৭১১৪১৬০৪১

৫। নবাবগঞ্জ বোডিং
এ্যড: কাশেম মিঞা
হাসপাতাল রোড, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফোনঃ ০১৭১৫১৬৭৬৪৬

৬। হোটেল রংধনু
মোসারফ হোসেন
লাখেরাজ পাড়া, মহনন্দা বাসষ্ট্যান্ড, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
ফোনঃ ০১৭১২৩৩৯৬৮৭

কি করবেন

  1. মসজিদে নামাজ পড়তে পারেন।
  2. মাজার জিয়ারত করতে পারেন।
  3. মুঘল স্থাপনা দেখতে পারেন।

খাবার সুবিধা

আপনি সাথে করে খাবার নিয়ে যেতে পারেন অথবা আশেপাশে খাবার রেস্টুরেন্ট কিংবা ফাস্টফুডের দোকানের খোঁজ করতে পারেন।

মানচিত্র

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কথা বলুন

এই মুহূর্তে অনলাইনে না থাকায় আমরা দুঃখিত! কিন্তু আপনি আমাদের ই-মেইল পাঠাতে পারেন। আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেব।

আপনার প্রশ্ন বা সমস্যার সহযোগিতা করায় আমরা সর্বদা তৎপর!

ENTER ক্লিক করুন