Nagar Kasba

ধরন: প্রাসাদ
সহযোগিতায়:
Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

বিস্তারিত

Kasba (কসবা) is an administrative unit of the Sultani rulers (1342-1576). The administrative units, such as Iqta(ইকতা), Erta (ইরতা), Iqlim (ইখলিম), and Kasba (কসবা) have been mentioned in the contemporary texts.

So far 37 Kasbas could be traced in the region of Bangladesh, most of which had been within or near about the present district towns. The distance between one Kasba from another varied. It is noticed that official titles were associated with some of the kasbas. We can exemplify Kazir Kasba (কাজীর কসবা), Kotowaler Kasba(কোতওয়ালির কসবা), Nagar Kasba(নগর কসবা) etc. Considering the location, distance of one from another, communication system with the central or Provincial Capital, attachment of official titles etc it is assumed that Kasba were administrative units and were equivalent to districts. An administrative officer, a Quazi (কাজী) and a Kotwal(কোতওয়াল) were in charge of a Kasba.

In this complex of many buildings we can detect several names of businessman who built those in different period of time in 19th Century.

While most of the Kasbas lost their former importance during the Mughal period, Munshiganj, or Bikrampur, as it was known earlier, flourished as an important district through a rich combination of education, economy, literary & cultural pursuits. Therefore, the Nagar Kasba of Munshiganj stood with its importance through the course of time. It is believed that during the British rule, especially during the later part of the 19th century, Nagar Kasba was rebuilt as a residential area of wealthy predominantly Hindu business people, who mostly traded through the river port of Mirkadim.

After the Partition of India (1947), it is believed that most of the Hindu wealthy families migrated to Kolkata. Those who decided to stay back, to tend to their established businesses soon began to find it difficult. As sporadic communal riots continued, the exodus continued till the late 1950s. Families often left silently at night, leaving behind all their belongings. Those who still chose to stay, almost completely left for India during our Liberation War in 1971.

During these dire times, most of these full-furnished wealthy houses fell vacant and remained untended for a long time. Gradually, over time, these empty houses began to be taken over by influential locals. The descendents of these grabbers now own these properties, and live in the dilapidated buildings. It therefore is not surprising that a house that looks like it was purposely built for Hindu owners now adorns the names of Muslim people.

Even in its latest hay days in the later part of the 19th century, Nagar Kasba was a row of magnificent houses, mostly of two floors, though not too large, but built in British colonial styles. The intricate designs and motifs that remain on the walls and pillars are testament to the wealth and taste of the owners. Unfortunately, almost all are now in ruins, where some have even been demolished by present day owners.


কিভাবে যাবেন

It’s about 5km south-east from Muktarpur Bridge of Munshiganj District. After passing the bridge there are available rickshaw & auto-rickshaw to reach at Riakbi Bazar road of Mairkadim village.

কিভাবে পৌঁছাবেন: মুন্সীগঞ্জ জেলা

ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জে বেশকিছু বাস চলাচল করে। এসব বাসের মধ্যে সবচেয়ে ভালমানের হল ঢাকার গুলিস্তান থেকে ছেড়ে যাওয়া ‘নয়ন পরিবহন’ এবং ‘ঢাকা ট্রান্সপোর্ট’। ৩০/- টাকা থেকে ৪০/- টাকা ভাড়ায় দুই ঘণ্টার মধ্যে আপনি মুন্সীগঞ্জে পৌছাতে পারবেন। এছাড়া ঢাকার পোস্তগোলা থেকে ‘গাংচিল’ নামে একটি বাস মুন্সীগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।
এছাড়া পোস্তগোলা থেকে সিএনজি অটোরিকশায় ২৫০/- টাকা থেকে ৩৫০/- টাকা ভাড়ায় আপনি মুক্তারপুর সেতুতে পৌছাতে পারবেন। তবে, সিএনজি অটোরিকশা ভাড়া করলে সেতুর টোল ২০/- টাকা কে পরিশোধ করবে এই বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন।

কোথায় থাকবেন

ঢাকার পাশেই অবস্থিত হওয়ার পরও মুন্সীগঞ্জ জেলায় থাকার জন্য ভালমানের হোটেল খুঁজে পাওয়া কঠিন। ঢাকা থেকে এখানে এসে মানুষ ঐদিনই ফিরে যেতো। তবে মুন্সীগঞ্জ শহরে থাকতে হলে আপনি ‘হোটেল কমফোরটে উঠতে পারেন। এছাড়া হোটেল থ্রি স্টার ইন্টারন্যাশনালেও উঠতে পারেন তবে এই হোটেলের কক্ষের মান তেমন উন্নত নয়। উভয় হোটেলেই কক্ষের মানভেদে ভাড়া পরবে ১০০/- টাকা থেকে ৭০০/- টাকা। মুন্সীগঞ্জ ও এই জেলার আশেপাশে অবস্থিত কিছু হোটেল, গেস্ট হাউজ ও রিসোর্ট সম্পর্কে তথ্য নিম্নে প্রদান করা হলঃ
১। মাওয়া রিসোর্ট
যোগাযোগঃ মোঃ আলী
ফোনঃ ০১৭১১৬৭৬০৫৮

২। পদ্মা রিসোর্ট
যোগাযোগঃ মোঃ আলী
ফোনঃ ০১৭১৩০৩৩০৪৯

৩। পদ্মা রেস্ট হাউজ
যোগাযোগঃ নির্বাহী প্রকৌশলী
সেতু বিভাগ, সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়
ফোনঃ ০১৭১৫৫৬১৯৩৩

কি করবেন

  • Observe the architectural beauty of this Building complex
  • Experience the way of using these buildings in recent time
  • Assume the way of living here previously

খাবার সুবিধা

Referred where to eat in Munshiganj. Click here

মানচিত্র

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কথা বলুন

এই মুহূর্তে অনলাইনে না থাকায় আমরা দুঃখিত! কিন্তু আপনি আমাদের ই-মেইল পাঠাতে পারেন। আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনার প্রশ্নের উত্তর দেব।

আপনার প্রশ্ন বা সমস্যার সহযোগিতা করায় আমরা সর্বদা তৎপর!

ENTER ক্লিক করুন